প্রবেশিকা

ক্ষুদ্রতম কথাটিও, প্রিয়,
বৃহতের কাছে পৌঁছে দিও ...
নতুবা কেমন তুমি কবি?
মাঝে মাঝে শুধু চিঠি দিয়ো...
কতো পথ পেরোলে অথবা
কত পথ বাকি আছে আজো –
- এইটুকু খবর জানিও...
আমি সেই চিঠিতেই খুশি...
আমার কথাটি তুমি, প্রিয়,
বিরাটের পায়ে রেখে যেয়ো।
**************************************************** **

Monday, September 1, 2014

এ অনন্ত যাদুঘরে






এ অনন্ত যাদুঘরে

এ অনন্ত যাদুঘরে আমাকেও কিরিপা করে রেখেছ বিধাতা
গ্রীষ্মদিনে বিষ্টি দাও, বিষ্টিদিনে কিনেদাও মহেন্দ্রর ছাতা
ছাতা ফেঁসে জলপরে, দশদিকে ভেসেযায় ‘ধর্ম অর্থ কাম’ –
তবুও নড়েনা পাতা, অতএব  ভক্তিদরে ‘মোক্ষ’ নীলাম
করে এসে চোখঠারি – মস্তিমারি বেশ্যালয়ে আমি ও বিধাতা
দিবালোকে বিধাতার  পাপহয় অনাচারি নারী সন্দর্শনে
শিষ্যভাবে তাই আমি লটকে দিই মহেন্দ্রর ছাতা -
-দিবালোকে বিধাতার উষ্ট্রহেন দোলানো গ্রীবাতে ।
রাবন রাক্ষসের চিতা শাক্তমতে তবু অনির্বান
নিভেযায় বিধাতার ডাইবেটিস্‌জাত জলস্রোতে।
তবুও এ যাদুঘরে আমাকেও কিরিপা করে রেখেছ বিধাতা
গেলাসের টান পরলে দয়াকরে কেটেনিও মাথা।।

Monday, August 25, 2014

কোটর






কোটর

তথাপি প্রশ্রয় দিলে একদিন কালসাপ হয়ে
গিলেখাবো সমূলে তোমাকে –

নিরীহ রাখাল তবু জেনেরেখো অজগর এক
নিঝুম বসত করে আমার কোটরে।

তাকে ঘুমপাড়ানোর মতো
মন্ত্র কিংবা জাদুকরী হাড়ের বাঁশরি
আছে কি এ মানচিত্রে?
লুকানো গুহাতে?

শকুন্তলার প্রতি আমার কদাপি গুপ্ত পক্ষপাত নেই –
রানী ম্যাক্‌বেথহেন যদি পারো ফিরে এসো
পরজন্মে – রক্তমাখা ছুরি নিয়ে হাতে ...